মডেম কি ? Modem কিভাবে কাজ করে ? মডেম এর প্রকারভেদ

আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি তারা প্রত্যেকে মডেম নাম টা শুনেছেন। বিশেষ করে কম্পিউটার বা ল্যাপটপে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তারা মডেম শব্দ টির সাথে বেশি পরিচিত। তো আজকের আর্টিকেলে আমরা মডেম সম্পর্কে আলোচনা কর ব অর্থাৎ মডেম কাকে বলে ? মডেম ব্যবহারের নিয়ম ? মডেমের কাজ কি ইত্যাদি বিষয়।

মডেম কি ? Modem কিভাবে কাজ করে ? মডেম এর প্রকারভেদ
Modem meaning in bengali

মডেম কি (what is modem in bengali) 

মডেম হলো এক ধরনের হার্ডওয়ার নেটওয়ার্ক ডিভাইস যা একটি কম্পিউটার স্যাটেলাইট বা টেলিফোন লাইনে ডেটা ট্রান্সমিশন এর কাজ করে অর্থাৎ ডেটা ট্রান্সমিশনে মডেম এর গুরুত্ব অপরিসীম। একটি ক্ষুদ্র একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস যা মডেমের মাধ্যমে কম্পিউটারের সাথে ইন্টারনেট সংযোগ করে 

কম্পিউটারে ইন্টারনেট ব্যবহার করার জন্য আগে মডেম প্রচুর ব্যবহার করা হতো কিন্তু মার্কেটে WiFi আসার ফলে মডেম এর ব্যবহার অনেক কমে গিয়েছে। মডেম অনেকটা পেনড্রাইভ এর মত দেখতে।

Modem এর পূর্ণরূপ কি (Modem full form in bengali)

মডেম এর ফুল ফর্ম কি ? modem এর ফুল ফর্ম হলো Modulator- DE- Modulator (মডুলেটর ডিমডুলেটর) এই দুটো শব্দ থেকে নাম হয়েছে Modem । 'Mo' তে modulator আর 'Dem' তে  DeModulator

মডেম কে আবিষ্কার করেন ? 

1977 সালে মডেম সর্বপ্রথম তৈরি হয় । Modem আবিষ্কার করেন Dale Heatherington  এবং Dennis Hayes  নামে দুজন ব্যক্তি ।

মডেম কিভাবে কাজ করে ?

এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ডেটা দু'ভাবে ট্রান্সফার হতে পারে Digital Form এ অথবা analog form এ । 

ডিজিটাল ফর্মে কিভাবে ডাটা ট্রানস্ফার হয় সেটা আপনাদের  উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে দেয় আপনি যখন কম্পিউটারে কোন ডেটা ট্রান্সফার করেন সেটা digital form এ ট্রানস্ফার হয়।

আর আপনি যখন টেলিফোনের মাধ্যমে কথা বলেন বা ডাটা ট্রান্সফার করেন সেটা কিন্তু অ্যানালগ ফর্মের মাধ্যমে ট্রানস্ফার  হয় । আশা করি আপনারা analog signal কিdigital signal কি সেটা বুঝতে পারলেন।

ডিজিটাল থেকে অ্যানালগ সিগনালে রূপান্তরিত হওয়ার প্রক্রিয়াকে মড্যুলেশন বলে অর্থাৎ এই সম্পূর্ণ কাজটি করে মডেম।

ঠিক একইভাবে অ্যানালগ সিঙ্গেল থেকে ডিজিটাল সিগন্যাল এ রূপান্তরিত হওয়ার প্রক্রিয়াকে ডিমড্যুলেশন বলে

আশাকরি আপনারা মড্যুলেশন কি ? ডিমড্যুলেশন কি ? এই ব্যাপার গুলো বুঝতে পারলেন। modulation এর ঠিক বিপরীত কাজটা করে De-modulation অর্থাৎ একে অপরের পরিবর্তনের যে প্রক্রিয়াটি সেটি সম্পন্ন করে মডেম।


আরও পড়ুন : বারকোড কি?

Modem এর প্রকারভেদ (types of modem in Bengali)

বর্তমানে কম্পিউটারে বিভিন্ন ধরনের মডেম ব্যবহার করা হয়। তো চলুন আমরা জেনে নেই মডেম কয় প্রকার ও কি কি ?

১. Dial-up Modem (ডায়াল-আপ মডেম) 

Dial-up Modem অ্যানালগ সংকেত এর মাধ্যমে ডাটা ট্রান্সফার করে। এই মডেমটি analog সংকেত ব্যবহার করে ISP সাথে যোগাযোগের জন্য ব্যবহার করা হয়।

২. Cable Modem (ক্যাবল মডেম) 

ক্যাবল মডেম হলো এক ধরনের নেটওয়ার্কিং ডিভাইস যেটির মধ্যে coaxial ক্যাবল থাকে । একটি একদম মডেমের শেষ প্রান্তে থাকে। এটি কম্পিউটার ডিভাইস কে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (ISP) এর সাথে সংযুক্ত করে।

. Internal Modem (ইন্টারনাল মডেম)

Internal Modem হল কম্পিউটারে ভিতরে ইন্সটল করা একটি ডিভাইস। যা কম্পিউটার ও নেটওয়ার্ক এর মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করে। ইন্টারনাল মডেম এর মানে হচ্ছে আভ্যন্তরীণ মডেম একটি কম্পিউটারের মাদারবোর্ড এ থাকে।

৪. External Modem (এক্সটার্নাল মডেম)

External Modem মানে বাহ্যিক মডেম। এ মডেমটি ক্যাবলের মাধ্যমে কমপিউটারের সিস্টেমের সঙ্গে সংযুক্ত থাকে । ইন্টারনাল মডেমের ঠিক বিপরীত  হচ্ছে এক্সটার্নাল মডেম। 

Modem এর সুবিধা 

• মডেমের মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযোগ ব্যাবহার করে গোটা বিশ্বে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি ঘটিয়েছে।

• Modem এর স্পীড আপনি যে রকম খরচ করবেন সেটার উপর নির্ভর করে।

• digital থেকে analogue ও analogue থেকে digital সিগনালে রূপান্তরিত করতে সাহায্য করে।

Modem এর অসুবিধা 

• মডেম নিজের গন্তব্য পথ সম্পর্কে সঠিক জানিনা 

• সব অঞ্চলে মডেমের connection পাওয়া যায় না যেমন প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে।

আশা করি আপনারা মডেম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারলেন। Modem সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে এই আর্টিকেলটি কেমন লাগলো অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ধন্যবাদ।

Please do not enter any spam link in the comment box.

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post

Ads

Ads