আউটসোর্সিং কি | আউটসোর্সিং কি ভাবে করব | what is outsourcing in bangla

 ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিং এই দুটো নাম কিন্তু আমরা কম-বেশি প্রায় প্রত্যেকে শুনেছি। ফ্রিল্যান্সিং কি সেটা আমরা আগের আর্টিকেলে আলোচনা করেছিলাম এবার আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করব আউটসোর্সিং কি (outsourcing ki)। 

তো আপনি যদি আউটসোর্সিং সম্পর্কে সেরকম কিছু না জেনে থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করব আউট সোর্সিং কিআউটসোর্সিং কিভাবে শুরু করবোআউটসোর্সিং এর কাজ গুলো কি কি ইত্যাদি বিষয়। 

আউটসোর্সিং কি | আউটসোর্সিং কি ভাবে করব |
what is outsourcing in bengali

বর্তমানে কিন্তু সরকারি চাকরি পাওয়া খুব কষ্টসাধ্য ব্যাপার। আপনার হাতে যদি পর্যাপ্ত স্কিল থাকে বা ফ্রিল্যান্সিংয়ের যেকোনো বিষয়ে আপনি দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে ঘরে বসে অনলাইনে মাধ্যমে আয় করতে পারবেন এবং অনলাইন থেকে আয় করার অন্যতম মাধ্যম হলো ফ্রিল্যান্সিং।  তো বাইরের বিভিন্ন বড় বড় কোম্পানিগুলো আউটসোর্স করায় ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে। চলুন তাহলে জেনে নেই আউটসোর্সিং কী

আউটসোর্সিং কি | outsourcing meaning in bengali

outs মানে হচ্ছে বাইরে আর sourcing মনে হচ্ছে উৎস অর্থাৎ কোন একটি কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান বাইরের যে কাউকে দিয়ে তার কাজ করে নেওয়ার যে প্রক্রিয়া, সেটাই হচ্ছে আউটসোর্সিং। 

অর্থাৎ আউটসোর্সিং কোম্পানি তাদের কাজের জন্য পার্মানেন্ট এমপ্লয়ি না রেখে ওই কাজটা বাইরের কাউকে দিয়ে অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সারদের কে দিয়ে করিয়ে নেয়। 

আরও পড়ুন : মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায়

উদাহরণ স্বরূপ, কোন একটা কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের একটি ওয়েবসাইট লাগবে তো এর জন্য পার্মানেন্ট কোন এমপ্লয়ি যদি সে তার কোম্পানিতে নিয়োগ করে তাহলে তাকে প্রতি মাসে বেতন দিতে হবে, তাকে অফিসে আসতে হবে এছাড়া বিভিন্ন উৎসবে তাকে বোনাস দিতে হবে অর্থাৎ এই কর্মীর পেছনে কোম্পানি কে প্রচুর অর্থ ব্যয় করতে হয়। 

এ কাজটা যদি কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান বাইরের কোন ফ্রিল্যান্সার দের কে দিয়ে করিয়ে নেয় তাহলে অনেক কম খরচে এই কাজটি করাতে পারবেন অর্থাৎ কোম্পানীর যে কাজটি প্রয়োজন সে কাজটি যদি freelancer দের কে দিয়ে চুক্তিভিত্তিক ভাবে অনলাইনে করে নেয় তাহলে কোম্পানি বেশ লাভবান হবে। 

ইউরোপের দেশগুলোতে শ্রম মূল্য খুব বেশি হয় আর এশিয়ার দেশগুলোতে (ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান) শ্রম মূল্য তুলনামূলকভাবে অনেকটাই কম । এর জন্য ইউরোপ দেশের বিভিন্ন কোম্পানিগুলো এশিয়ার বিভিন্ন দেশের এক্সপার্ট লোকের কাছ থেকে কাজ করিয়ে নেই অর্থাৎ আউটসোর্সিং করে।

আউটসোর্সিং কাকে বলে | outsourcing bangla meaning

কোন একটি কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান বাইরের কাউকে দিয়ে চুক্তিভিত্তিকভাবে অনলাইনে কাজ করে নেওয়ার যে প্রক্রিয়া তাকে আউটসোর্সিং বলে।

অর্থাৎ আপনার যখন কোন কাজের প্রয়োজন হবে আপনি তখন সেই কাজটার জন্য বাইরের যে কাউকে হায়ার করে কাজটা করে নিতে পারবেন । শুধুমাত্র সেই কাজটির জন্য তার শ্রমের যে মূল্য সে টাকাটা আপনাকে পে করতে হবে।

আউটসোর্সিং কি ভাবে করব 

আশা করি এই পোস্টটি পড়ে আপনারা বুঝতে পেরেছেন আউটসোর্সিং মানে টাকা ইনকাম করা নয় আউটসোর্সিং মানে হচ্ছে বাইরের কাউকে দিয়ে কাজ করিয়ে নেওয়া।

তো আপনার যদি একটি কোম্পানি থেকে থাকে তো আপনি চাইছেন অফিসে না এসে কম খরচে বাইরের কাউকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিতে তাহলে সেটা করতে পারবেন। 

 বাইরের দক্ষ ব্যক্তি বা দক্ষ ফ্রিল্যান্সার দের কে কোথায় খুঁজবেন । তো ফ্রিল্যান্সার খোঁজার জন্য অনেক অনলাইন মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেমন

            • Fiverr.com 

            • Upwork.com 

            • Freelancer.com

            • Guru.Com ইত্যাদি 

তো এই সব ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার requirement অনুযায়ী দক্ষ ফ্রিল্যান্সার দের কে খুজে নিতে পারবেন এবং চুক্তি অনুযায়ী তাকে দিয়ে আপনার কোম্পানি কাজ করিয়ে নিতে পারবেন এর ফলে আপনি কিন্তু লাভবান হতে পারেন।

আউটসোর্সিং এর কাজ গুলো কি কি ? 

আউটসোর্সিং এর অনেক কাজ রয়েছে। আউটসোর্সিং অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন রকম কাজ ভাগ করা থাকে, আপনার কি ধরনের কাজ করিয়ে নিতে চান সেটা আপনাকে খুঁজে নিতে হবে। অনলাইন মার্কেটপ্লেস যেমন Fiverr, Upwork, Guru.Com এই সমস্ত মার্কেট প্লেসে 

            • web design and development

            • digital marketing

            • graphic design

            • seo expert

            • content writing

            • virtual assistant

            • video editing

            • animation

            • data entry

 এই সমস্ত কাজের বেশ চাহিদা রয়েছে তো আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনি যে কাজটি করিয়ে নিতে চান সে কাজটি করার জন্য অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ প্রচুর দক্ষ ফ্রিল্যান্সার পেয়ে যাবেন এবং তাদেরকে চুক্তি অনুযায়ী বেতন দিয়ে কাজ করিয়ে নিতে পারবেন।

আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে আয় কিভাবে করব 

ভারত এবং বাংলাদেশে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে আয় বিষয়টি খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে আয় করার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট একটি বিষয় দক্ষ হতে হবে অর্থাৎ আপনাকে প্রচুর skilfull হতে হবে। 

তারপর যেকোনো একটা অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেট প্লেসে একাউন্ট করে আপনার মেধাকে বিক্রি করে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনাদের মনে অনেকের প্রশ্ন থাকতে পারে কোন কোন কাজ শিখে আউটসোর্সিং করব এই বিষয়টা আমি উপর আলোচনা করলাম ওই গুলির মধ্যে যেকোনো একটি কাজ শিখিয়ে আপনারা আউটসোর্সিং করে টাকা আয় করতে পারবেন।

আউটসোর্সিং এর সুবিধা 

আউটসোর্সিং এর সুবিধা কি সেগুলো নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো

• outsourcing এর সব থেকে বড় সুবিধা হল আপনি কম খরচে আপনার কোম্পানি বা এজেন্সির কাজ বাইরে কাউকে দিয়ে করে নিতে পারবেন।

• আপনার কোম্পানি কাজ করিয়ে নেয়ার জন্য কর্মীদেরকে অফিসে আসার প্রয়োজন নেই তারা বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে আপনার কাজ অনলাইনে এর মাধ্যমে করে দেবে।

• আপনি যে কাজটি করিয়ে নিতে চান শুধুমাত্র সেই কাজটির জন্য আপনি আউটসোর্সিং করতে পারবেন অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সার হায়ার করতে পারবেন, মাসিক বেতন ভিত্তিক তাদেরকে নিয়োগ করার প্রয়োজন পড়ে না।

• কোম্পানি বা এজেন্সির কাজগুলো তুলনামূলকভাবে কম খরচে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে করা হয় এতে কোম্পানি লাভবান হয়।

• আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে চুক্তিভিত্তিকভাবে বেতন দিয়ে আপনি যেকোনো কর্মীকে নিয়োগ করতে পারবেন। 

তো বন্ধুরা আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা outsourcing কিআউটসোর্সিং কাজ । আউটসোর্সিং কিভাবে শুরু করবো আউটসোর্সিং করে টাকা আয় কিভাবে করব এই সমস্ত বিষয়গুলো বুঝতে পারলেন।

আউটসোর্সিং কাকে বলে (outsourcing kake bole) নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলটি কেমন লাগলো অবশ্যই নিচে থাকা কমেন্ট বক্সে আপনাদের মতামত জানাতে পারেন ধন্যবাদ।



Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url