ক্রেডিট কার্ড কি ? ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাবো | What is credit card in Bangla

 আমরা কিন্তু প্রায় প্রত্যেকেই ডেবিট কার্ড ও ক্রেডিট কার্ড এর নাম শুনেছি। আগের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করেছিলাম ডেবিট কার্ড কি । তো আজকের আর্টিকেলে আমরা ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে সমস্ত কিছু আলোচনা করব।


ক্রেডিট কার্ড কি ? ক্রেডিট কার্ড কিভাবে পাবো
credit card in Bangla


আপনারা যদি এই আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়েন তাহলে credit card কি ? ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার যোগ্যতা ? ইসলামিক ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড ? ব্যাংক এশিয়া ক্রেডিট কার্ড সুবিধা ইত্যাদি বিষয়ে সম্পূর্ণ ধারণা পেয়ে যাবেন।


চলুন তাহলে বেশি দেরি না করে ক্রেডিট কার্ড কী এই বিষয়টি জেনে নিন।


ক্রেডিট কার্ড কি  ? (Credit card meaning in Bengali) :

ক্রেডিট কার্ড হল এক ধরনের ডিজিটাল কার্ড বা প্লাস্টিক কার্ড যেটি সাহায্যে আপনারা ব্যাংক থেকে টাকা নিতে পারবেন আপনার ব্যাংক একাউন্টে কোন টাকা না থাকলেও। 


ব্যাংক থেকে নিজের ইচ্ছামত যত ইচ্ছা তত টাকা নিতে পারবেননা ব্যাংক আপনাকে প্রতিমাসে Cradit কার্ডের মাধ্যমে কত টাকা নিতে পারবেন তার একটা লিমিট দিয়ে দেয় তার বেশি কিন্তু আপনারা খরচ করতে পারবেন না। আপনার ক্রেডিট লিমিট যদি মাসে 60000 হয় তাহলে আপনারা 60000 নিতে পারবেন তার বেশি নিতে পারবেন না , যার সঙ্গে আপনার নিজের ব্যাংক একাউন্টের সাথে কোন সম্পর্ক থাকে না।


উদাহরণস্বরূপ আপনি কালকে একটি নতুন মোবাইল কিনবেন আপনার ব্যাংক একাউন্টে কোন টাকা নেই কিন্তূ আপনার কাছে একটা ক্রেডিট কার্ড (credit card) আছে তো সে ক্ষেত্রে আপনারা ওই ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে মোবাইলটি কিনতে পারবেন। মাসের শেষে আপনাকে সুদ (interest) সহ টাকাটা ব্যাংক কে ফেরত দিতে হবে অর্থাৎ আপনার ব্যাংক একাউন্টে কোন টাকা না থাকলেও আপনি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ব্যাংক থেকে টাকা নিতে পারছেন এটা হচ্ছে Credit কার্ড এর প্রধান সুবিধা।


ক্রেডিট কার্ড কাকে বলে ? (What is credit card in Bengali) :

 ব্যাংকের যে ডিজিটাল কার্ড বা প্লাস্টিক কার্ডের মাধ্যমে আপনার একাউন্টে কোন টাকা না থাকলেও  ব্যাংক থেকে সরাসরি আপনারা টাকা নিতে পারছেন সেটিই হচ্ছে ক্রেডিট কার্ড। অর্থাৎ বলা যেতে পারে ক্রেডিট কার্ড এক ধরনের লোন সেটি আপনাকে মাস শেষে সুদ সহ পরিশোধ করতে হবে।

 

ডেবিট কার্ড ও ক্রেডিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য কি ?  

ডেবিট কার্ড ও ক্রেডিট কার্ড এর প্রধান পার্থক্য হল ডেবিট কার্ড আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত আপনি যত টাকা তুলবেন, যত টাকা আপনি অনলাইনে লেনদেন করছেন সমস্ত টাকা কিন্তু আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে কাটবে আপনার ব্যাংক একাউন্টের টাকা শেষ হয়ে গেলে আপনি আর ডেবিট কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না।


কিন্তু ক্রেডিট কার্ড একটু ভিন্ন ধরনের আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের যুক্ত থাকে না এই কার্ড মূলত ব্যাংকের সঙ্গে যুক্ত থাকে ।  ব্যাংক একটি ক্রেডিট লিমিট দিয়ে দেই আপনি আপনার ইচ্ছামত ওই লিমিট পর্যন্ত টাকা তুলতে পারবেন অর্থাৎ আপনার একাউন্টে টাকা না থাকলেও কিন্তু আপনি টাকা তুলতে পারছেন। এবং মাস শেষে আপনাকে interest কিন্তু সে টাকা টা ব্যাঙ্ক কে ফেরত দিতে হবে।


উদাহরণস্বরূপ এই ব্যাপারটি  মোবাইলের prepaid এবং postpaid তুলনা করলে ব্যাপারটি ভালো বুঝতে পারবেন। প্রিপেইড মানে হচ্ছে আপনার মোবাইলে যতক্ষণ ব্যালেন্স থাকবে ততক্ষণ আপনি কারো সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। আর postpaid হচ্ছে আপনি কারো সঙ্গে যত খুশি তত কথা বলতে পারেন এবং মাস শেষে কিন্তু আপনাকে সে বিলটা পরিশোধ করতে হয়। ঠিক prepaid এবং postpaid মত হচ্ছে ডেবিট কার্ড এবং ক্রেডিট কার্ড।


আশা করি আপনারা ক্রেডিট কার্ড এবং ডেবিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য কি এই বিষয়টি বুঝতে পারলেন।



ক্রেডিট কার্ড করতে কি কি লাগে : 

 আপনার বয়স যদি 18 বছরে উঠতে হয় এবং আপনি যদি ভারতীয় নাগরিক হোন তাহলে ক্রেডিট কার্ড করার জন্য এই ডকুমেন্টগুলো লাগব ।


• credit card application form


• passport size photo


• identity proof (voter card , PAN card, Aadhar card, driving licence)


• address proof (Aadhar card, voter card, ration card, driving licence)


• income proof (latest salaries sleep last 3 months,  bank statement last 3 months )


ক্রেডিট কার্ড কি ভাবে পাবো : 

ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য কিছু শর্ত বা ক্রেডিট কার্ডের নিয়মাবলী আছে । ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার যোগ্যতা আপনার আছে কিনা সেটা কিন্তু ব্যাংক কর্তৃপক্ষ দেখবে। যেমন 


Income source : 

আপনার ইনকাম সোর্স কেমন সেটা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ভালো করে চেক করে নেবে। আপনার যদি ভালো income source না থাকে তাহলে কিন্তু আপনি এই কার্ড পাবেন না। আপনি এই কার্ডের মাধ্যমে লোন নিলে পরিশোধ করার মত আপনার ক্ষমতা আছে কিনা সেটা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ভালোভাবে যাচাই করবে তারপর তারা বিবেচনা করবে।


Credit history : 

আপনার ক্রেডিট হিস্ট্রি অর্থাৎ আপনি যদি আগে কোন ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে থাকেন সেটি আপনি ঠিক সময়ে পরিশোধ করেছেন কিনা সেটি তারা যাচাই করবে।


 Cibil score :

 আপনার Cibil score বা credit score ভালো থাকে তাহলে credit card পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আপনার Cibil score যদি 750 উপর হয় তাহলে আপনি ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য eligible হবেন।


Job বা business verify :

 আপনি যে জবটি করছেন সেটা কত বছর ধরে করছেন বা আপনি কত বছর ধরে ব্যবসা করছেন আপনার ব্যবসার প্রফিট কেমন আছে সেটা কিন্তু তারা ভালোভাবে চেক করবে।


Location :

 ব্যাংক কর্তৃপক্ষ প্রত্যেকটি জায়গায় কিন্তু ক্রেডিট কার্ড দেয় না।  এমন জায়গা রয়েছে সেখানে অনেকজন ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকা নিয়েছিল সেই টাকা collection গেলে অনেক সমস্যা সম্মুখীন হতে হয়েছে সেরকম এলাকার লোকদের ক্রেডিট কার্ড দিতে চায় না। 


ক্রেডিট কার্ড করার নিয়ম : 

তো চলুন কিভাবে ক্রেডিট কার্ড তৈরি করব এই ব্যাপারটি আপনাদেরকে বলি ।  ক্রেডিট কার্ড আবেদন আপনারা দুই ভাবে করতে পারেন। 


            • online

            • offline


• Online এ আবেদন কিভাবে করবেন :

  আপনি যে ব্যাংকের Cradit Crad নিতে চান সেই ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে চলে যাবেন তারপর সেখানে আপনারা অনলাইনে ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন (credit card apply) করতে পারবেন। আবেদন করার জন্য কি কি লাগবে সেগুলোতো উপর আলোচনা করলাম ।  তো আপনারা online credit application from সঠিকভাবে ফিলাপ করে সাবমিট করে দিবেন।


• Offline এ আবেদন কিভাবে করবেন :

 ঠিকা কিরকম ভাবে যে ব্যাংকের আপনি Cradit কার্ড জন্য আবেদন করতে চান সেই ব্যাংকে চলে যাবেন সেখানে ক্রেডিট কার্ড অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম চেয়ে নিবেন ফরমটি সঠিকভাবে ফিলাপ করে জমা দিয়ে দিবেন।


তারপরে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে আপনার credit card বাড়িতে পৌঁছে যাবে। অর্থাৎ যারা ভাবছেন ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো আশা করি তারা এ ব্যাপারটি বুঝতে পারলেন।


ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম : 

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম টি আমাদের সকলেরই জানা উচিত না হলে পরবর্তী করলে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। 


• আপনি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে কত টাকা নিচ্ছেন তার ওপর কিন্তু সুদ নির্ভর করে তো credit card মাধ্যমে টাকা নেওয়ার আগে সুদ কত সেটা ভালো করে আগে জেনে নেবেন না হলে কিন্তু পরবর্তী করলে বিপদে পড়তে পারেন।


•  নতুন ক্রেডিট কার্ড করার আগে আপনারা ভালো করে জেনে নিন ক্রেডিট কার্ডের কোন কোন খাতে কত টাকা চার্জ কাটে। এই জন্য ওই কার্ডের স্টেটমেন্টে ভাল করে পড়ুন ওইখানে সমস্ত কিছু দিয়ে থাকে তারপর সেই অনুযায়ী কার্ডটি ব্যবহার করুন।


• কার্ডের সমস্ত আপডেট ট্রানজেকশন হিস্টরি (transaction history) দেখার জন্য অ্যাপ ব্যবহার করুন তাহলে সেখানে সমস্ত রকমের আপডেট প্রতিনিয়ত তৈরি চেক করতে পারবেন।


• Cibil score ঠিক রাখতে এবং লেট ফাইন এড়াতে সঠিক সময়ে টাকা জমা করুন


• ক্রেডিট কার্ডের উপর আপনারা অতিরিক্ত নির্ভরশীল হয়ে পড়বেন না। এক্ষেত্রে পরবর্তীকালে ঠিক সময়ে টাকা জমা না দিতে পারলে অনেক ঋণের বোঝা আপনার উপর চেপে যাবে।


ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা : 

ক্রেডিট কার্ড এর সুবিধা গুলো কি কি আসুন জেনে নিই 


• Credit Card এর প্রধান সুবিধা হল আপনার যখন টাকার খুব প্রয়োজন হবে কারো কাছ থেকে যখন ম্যানেজ করতে পারবেন না তখন আপনি credit card মাধ্যমে কিন্তু টাকা নিতে পারবেন এবং মাস শেষে আপনাকে ওই টাকাটা পে করতে হবে।


• ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে শপিং করার সময় অনেক rewards point পাওয়া যায় যেগুলো পরবর্তীকালে redeem করতে পারবেন।


• ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে পেমেন্ট করলে কিছু টাকা ক্যাশব্যাক পাওয়া যায় যেমন, নতুন মোবাইল কিনলে, হোটেল বুক, ফ্লাইট টিকিট বুক ইত্যাদি


• ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লোন নিয়ে ঠিক টাইমে টাইমে পরিশোধ করলে আপনার Cibil score বাড়তে সাহায্য করে।


 ক্রেডিট কার্ডের অসুবিধা : 

ক্রেডিট কার্ডের যেমন সুবিধা আছে ঠিক তেমন অসুবিধা রয়েছে সেগুলো নিচে আলোচনা করছি 


• ঠিক সময়ে টাকা পরিশোধ না করলে আপনাকে লেট ফাইন দিতে হবে। আপনার টাকা পরিশোধ করার ডেট যদি এক তারিখ হয় আর আপনি দুই তারিখে যদি টাকা পরিশোধ করেন তাহলে আপনাকে এক্সট্রা টাকা দিতে হবে।


• ইন্টারন্যাশনাল ট্রান্জাক্শন-এ ক্রেডিট কাড সিকিউরিটি একটু কম । International transaction এ টাকা তুললে কোন ওটিপি আসে না।


• যেদিন থেকে কার্ডের মাধ্যমে টাকা তুলবেন তারপর থেকে কিন্তু আপনার উপর interest যোগ হতে থাকবে


• ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লোন নিলে প্রতি মাসে তাকে high interest টাকাসহ লোন পরিশোধ করতে হয় প্রতিমাসে অন্তত 2.5% অথবা 3% সুদ দিতে হয় যেটি অনেক বেশি।


আশা করি আজকের আর্টিকেল থেকে credit card ki | কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো ক্রেডিট কার্ড কত প্রকার ও কি কি বিষয় গুলি জানতে পারলেন।


ক্রেডিট কার্ড নিয়ে আজকের আর্টিকেলটি কেমন লাগলো অবশ্যই নিচের কমেন্ট বক্সে আপনাদের মতামত জানাতে পারেন ধন্যবাদ।

Please do not enter any spam link in the comment box.

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post

Ads

Ads